খুঁজুন
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১২ বৈশাখ, ১৪৩১

বানিয়াচংয়ে ভারি বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে শত,শত কৃষকের স্বপ্ন

উপজেলা প্রতিবেদক
প্রকাশিত: রবিবার, ৮ অক্টোবর, ২০২৩, ৮:৪০ অপরাহ্ণ
বানিয়াচংয়ে ভারি বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে শত,শত কৃষকের স্বপ্ন

হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে অতি-ভারি বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে শত,শত কৃষকের স্বপ্নের সোনার ফসল আমন ধান সহ নানান জাতের শাত-সবজির জমি।এতে করে নষ্ট হয়ে গেছে কোটির মতো ফসল।

হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার বেশির ভাগ পরিবার কৃষির উপর প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। ধান,ভুট্টা সহ নানান জাতের শাক-সবজি চাষাবাদ করা ফসলের অন্যতম। কম খরচে চাষাবাদ হওয়ায় আমন ধান কৃষকের বড় স্বপ্নের ফসল। এই ভারি বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যাওয়া জমি গুলো সরজমিন পরিদর্শন করে দেখাযায়, হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় বিস্তীর্ণ হাওর এলাকা জুড়ে চাষ করা হয়েছে সোনলী আমন ধান ও বিভিন্ন প্রজাতির শাক সবজির ফসল।

কৃষকের স্বপ্নের সেই ফসল আমন ধান মধ্য বয়সী হতেই ভারি বৃষ্টির পানিতে ডুবেছে। এক নাগালে ভারি বৃষ্টি হওয়ার কারনে, এবং পর্যাপ্ত পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার অভাবে আমন ক্ষেতের পানি যেন নামছে না।ফলে টানা ২/৩ দিন ধরে পানিতে ডুবে আছে ক্ষেতের ধান চাড়া,ভুট্টা সহ নানান জাতের শাক-সবজি ফসল। দীর্ঘ সময় পানিতে ডুবে থাকলে একেবারে পচে নষ্ট হয়ে যাবে কৃষকের স্বপ্নের ফসল। উপজেলার অধিকাংশ আমন ক্ষেত এখন পর্যন্ত পানির নিচে নিমজ্জিত রয়েছে।

কৃষক আব্দল মান্নান বলেন,শুধু আমার আমন ক্ষেত নয়, পুরো এলাকার সবার ক্ষেত আজ ৩ দিন ধরে ডুবে আছে।কিন্তু এরই মধ্যে আমন ধান গাছ পচে নষ্ট হচ্ছে। কের প্রতি জমিতে প্রতিবছর ১৪/১৫ মণ করে ধান পাই।আমন চাষে সেচ খরচ নেই। তাই ফলন কম হলেও বেশ লাভ হয়।তবে এবার উৎপাদন খরচ তো দূরের কথা বাড়িতে চিড়া মুড়ি খাওয়ার মতোও ধান আসবে না। কৃষক আনোয়ার মিয়া খুব আক্ষেপ করে বলেন,আমার আট(৮)কের আমন ধানি জমির সব গুলো পানিতে ডুবে গেছে, যা নতুন করে রোপন করার আর কোনো সুযোগ নাই।বৃষ্টির পানিতে ডুবে আছে আমন ধান ক্ষেত। পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা খুবই কম।তাই নদীতে পানি নামছে খুবই ধীর গতিতে।ফলে আমন ধানগাছ পচে নষ্ট হচ্ছে।

এব্যাপারে কৃষক সাদিকুর রহমান কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন,তিন থেকে সাড়ে তিন টাকা খরচ করে ৬কের কৃষি করেছিলেন তিনি,স্বপ্ন ছিলো মায়ের চিকিৎসা,ছোট্ট বোনের বিয়েসহ আনুষাঙ্গিক কাজকর্ম করবেন এই কৃষিটুকু সুন্দর ভাবে তুলার পর। কিন্তু দুই দিনের টানা বৃষ্টিতে একেবারেই তলিয়ে গেছে তার সবকিছু। সাথে সাথে স্বপ্নটুকুও তার নিমিষেই বিলীন হয়ে গেছে। তাই তিনি মাননীয় সংসদ সদস্যসহ উপজেলার জনপ্রতিনিধি ও কৃষি অধিদপ্তরের লোকজনের নিকট আকুল আবেদন জানিয়েছেন তার মতো এমন শত,শত কৃষকের স্বপ্ন বিলীন হয়ে যাওয়া কৃষকগনের পাশে যেন দাঁড়িয়ে তাদেরকে পুনঃরায় বাচার স্বপ্নটুকু জাগিয়ে তুলে পাশে থাকেন।

এব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা কৃষি অফিসার মোহাম্মদ এনামুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,বানিয়াচং উপজেলার প্রায় এক হাজার সত্তর(১০৭০) হেক্টর আমন ধানি ফসলি জমি ও পঞ্চাশ (৫০)হেক্টর সবজি জমি আক্রন্ত হয়েছে। নষ্ট হওয়া ক্ষেতে নতুন করে আমন রোপণ করার সুযোগ নেই। তাই এসব জমিতে আগাম ভুট্টাসহ সবজি চাষাবাদের জন্য কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, সিলেট বিভাগের সচিব মহোদয়ের সেমিনারে বানিয়াচং উপজেলার কৃষকদের ক্ষয়ক্ষতির জন্য পুর্ণবাসনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানিয়েছি,এবং যে সব এলাকায় পানি নিষ্কাশনের অভাবে ক্ষেত ডুবে আছে। সেই সব এলাকায় কৃষি অফিসাররা তদন্ত করে স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

উত্তরের কণ্ঠ/এএস/  আকিকুর রহমান রুমন

বগুড়ায় বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

জেলা প্রতিবেদক, বগুড়া
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১:১০ অপরাহ্ণ
বগুড়ায় বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন। তীব্র গরমে বৃষ্টি প্রত্যাশা করে ইসতিসকার নামাজ আদায় করেছেন বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের ভবানীপুর এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

বৃহঃবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় দিকে ভবানীপুর মসজিদ প্রাঙ্গনে খোলা আকাশের নিচে এ নামাজের আয়োজন করেন স্থানীয় মুসল্লিরা।

এতে বিভিন্ন এলাকায় প্রায় শতাধিক মুসল্লি অংশ নেন। নামাজের ইমামতি করেন সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা শাহাদুজ্জামান। নামাজ শেষে বৃষ্টির আশায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এসময় মুসল্লিরা উল্টো হাতে কেঁদে কেঁদে বৃষ্টি প্রত্যাশায় দোয়া করেন।

স্থানীয়রা জানান, বৃষ্টির অভাবে জনজীবন অতিষ্ঠ, খাল-বিল, নদী-নালা শুকিয়ে চৌচির হয়ে গেছে। পানির অভাবে চাষাবাদও মারাত্মক ভাবে ব্যাহত হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে মাঠের ফসল। এ কারণেই আল্লাহ তায়ালার দরবারে বৃষ্টি চেয়ে এলাকাবাসী খোলা মাঠে নামাজ আদায় ও দোয়ার আয়োজন করেন।

এছাড়াও উপজেলার শব্দলদিঘী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ও সদর উপজেলার গোদারপাড়ায় সকাল সাড়ে ৮ ঘটিকার সময় ইসতিকার সালাত আদায় করে স্থানীয়রা।

নওগার সাপাহারে বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাপাহার
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১:০৫ অপরাহ্ণ
নওগার সাপাহারে বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন। তীব্র গরমে বৃষ্টি প্রত্যাশা করে ইসতিসকার নামাজ আদায় করেছেন সাপাহার উপজেলার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

বৃহঃবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় সাপাহার শরফাতুল্লাহ ফাজিল মাদ্রাসার আয়োজনে মাদ্রাসা মাঠ প্রাঙ্গনে খোলা আকাশের নিচে এ নামাজ আদায় করেন স্থানীয় মুসল্লিরা।

এতে বিভিন্ন এলাকায় প্রায় শতাধিক মুসল্লি অংশ গ্রহণ করেন। ইমাম নামাজের মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে নামাজের নিয়ম-কানুন বলেন এরপর দুই রাকাত নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষে দুই হাত তুলে প্রচন্ড গরম তীব্র তাবপ্রদাহ ও খরা থেকে রক্ষা পেতে বৃষ্টি প্রার্থনা করেন মহান আল্লাহর দরবারে বিশেষ দোয়া প্রার্থনা করেন সকলের চোখে জল ঝরে মোনাজাত ও ক্ষমাপ্রার্থনা করেন ইমাম ও মোসল্লীরা নামাজ শেষে বৃষ্টির আশায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এসময় মুসল্লিরা উল্টো হাতে কেঁদে কেঁদে বৃষ্টি প্রত্যাশায় দোয়া করেন।

নামাজে ইমামতি ও দোয়া পরিচালনা করেন সাপাহার সরফাতুল্লাহ ফাজিল মাদ্রাসার প্রভাষক ও হেফজুল বিভাগের প্রধান এবং সাপাহার মডেল মসজিদের সাবেক ইমাম মাওলানা ওমর ফারুক।

বৃষ্টির প্রার্থনায় বীরগঞ্জে ‘সালতুল ইস্তিসকার’ নামাজ আদায়

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১২:৩৭ অপরাহ্ণ
বৃষ্টির প্রার্থনায় বীরগঞ্জে ‘সালতুল ইস্তিসকার’ নামাজ আদায়

সূর্যের আলোর প্রখরতা, তীব্র দাবদাহে মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। হয়েছে আবহাওয়ার পালাবদল। তীব্র গরম থেকে মুক্তি পেতে দিনাজপুরের বীরগঞ্জের ভোগনগর ইউনিয়নের রহিম বখস্ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বৃষ্টির আশায় সালাতুল ইস্তেসকার নামাজ ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল ২০২৪) সকাল সাড়ে দশটার সময় ইস্তেসকার নামাজ অনুষ্টিত হয়। বীরগঞ্জ ফাজিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মোঃ মিরাজ রহমান নামাজে ইমামতি করেন। এতে শতাধীক মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। গত এক মাস আগেও বীরগঞ্জের যেখানে তাপমাত্রা ছিলো ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের নিচে। মাস খানেক পরেই সেখানে বেড়ে দাড়িয়েছে ৪৩ এর কোঁঠায়।

তীব্র রোদ আর ভ্যাবসা গরমে অস্থির জন-জীবন। বৃষ্টি না হওয়া স্বস্তির নিশ্বাস নিতে পারছেন না সাধারণ মানুষ। এই গরমে দেখা দিয়েছে খড়তা। বৃষ্টি না হওয়ায় নষ্ট হচ্ছে জমির ফসল। অপর দিকে নষ্ট হচ্ছে গাছের ফল। কিছু অঞ্চলে পানির স্তর নেমে যাওয়ায় টিউবওয়েল থেকে ঠিকমত উঠছে না পানি।

ভোগনগর ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান রাজিউর রহমান রাজু বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশে অনাবৃষ্টি ও তীব্র দাবদাহের কারনে জন-জীবন কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে। পশু-পাখী, গাছ-পালা সহ সকলের জন্য অত্যন্ত পানি প্রয়োজন হওয়া আমরা এলাকার যুবকরা মিলে সালাতুর ইস্তেসকার নামাজের আয়োজন করি।’

হাসিনুর ইসলাম বলেন, ‘আমরা এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে খোলা ময়দানে ইস্তেসকার নামাজ আদায় করেছি। অনাবৃষ্টির ফলে তীব্র গরমের কারণে শিশু, বৃদ্ধ, পশুপাখি সকলে কষ্টে জীবনযাপন করছে। রোজাদারদের অনেক কষ্ট হচ্ছে। গরমের কারণে বাচ্চারা পড়ালেখায় মন বসাতে পারছে না। বৃদ্ধরা অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।’

হাফেজ মো: জাহেদুল ইসলাম বলেন, ‘রাসূল (সাঃ) অনাবৃষ্টি ও দূর্ভিক্ষের জন্য সাহাবীদের নিয়ে খোলা ময়দানে ইস্তেসকার সালাত আদায় করেছিলেন। নবী রাসূলের সুন্নাত কে আকড়ে ধরার জন্য বর্তমান বাংলাদেশে অনাবৃষ্টি দেখা দিয়েছে। আমরা খোলা মাঠে সালাতুল ইস্তেসকা নামাজ আদায় করেছি।’

সালাতুল ইস্তেসকার নামাজ ও বিশেষ মোনাজাতে উপস্থিত ছিলেন ভোগনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ এলাকার সকল মুসল্লিগণ।

নামাজ শেষে বৃষ্টির আশায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এ সময় মুসল্লিরা কাঁদতে কাঁদতে আল্লাহর দরবারে দুই হাত তুলে বীরগঞ্জ উপজেলাসহ পুরো বাংলাদেশে বৃষ্টি বর্ষণের জন্য দোয়া করেন।

"> ">
বগুড়ায় বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা নওগার সাপাহারে বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা বৃষ্টির প্রার্থনায় বীরগঞ্জে ‘সালতুল ইস্তিসকার’ নামাজ আদায় বগুড়ায় বৃষ্টির প্রত্যাশায় ইসতিকার নামাজ আদায় শেরপুরে প্রচন্ড তাপদাহে কৃষকের মৃত্যু বগুড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত ব্যক্তির মৃত্যু বোচাগঞ্জে সড়ক নির্মান কাজে ধীরগতি দুর্ঘটনা আর ধুলোবালুতে অতিষ্ঠ পথচারী বীরগঞ্জে প্রাণি সম্পদ সেবা প্রদর্শণী সমাপনীতে পুরস্কার বিতরণ পীরগঞ্জে ভূমি অধিকার বিষয়ক সমাবেশ বগুড়ায় সিনেমা দেখলে বিরিয়ানি ফ্রি আমরা জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার হ্রাস করেছি : শেখ হাসিনা যে দোয়া পড়লে আপনার জন্য জান্নাত ফরিয়াদ করবে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশনে ত্রুটি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ ৩১ মে আলোচনায় বসতে পাঠানো হয়েছে চিঠি ফের এফ এ কাপের ফাইনালে ম্যানচেস্টার ডার্বি আরও তিন দিনের ‘হিট অ্যালার্ট’ জারি বীরগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ টি পদে ১৩ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল সারাদেশে ইন্টারনেটের গতি কম ঈদযাত্রায় ৪১৯ দুর্ঘটনায় নিহত ৪৩৮ দাবদাহে পুড়ছে দেশ, ঘরে-বাইরে কোথাও নেই স্বস্তি তাপদাহের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অ্যাসেম্বলি বন্ধ রাখার নির্দেশ সিসি ক্যামেরার আওতায় আসবে কক্সবাজার ছাতকের জাউয়া বাজারসহ তার আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি পীরগঞ্জে কৃষকলীগের ৫২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত সারাদেশে তিন দিনের হিট অ্যালার্ট জারি এখনই ‘প্রতিশোধে’ যাচ্ছে না ইরান নিজ বাহিনীতে ফিরে গেলেন র‌্যাবের মুখপাত্র মঈন শিশু হাসপাতালের আগুন নিয়ন্ত্রণে থার্ড টার্মিনালের দেয়াল ভেঙে ভেতরে বাস, প্রাণ গেল প্রকৌশলীর বীরগঞ্জে আশ্রয়ণ প্রকল্পের জরাজীর্ণ ব্যারাকের  ঘরের নির্মাণ কাজে জেলা প্রশাসক পরিদর্শন