খুঁজুন
শুক্রবার, ১২ এপ্রিল, ২০২৪, ২৯ চৈত্র, ১৪৩০

ইসরায়েলের স্থল অভিযান কেমন হবে, সফল হতে পারবে সেনারা?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ২০২৩, ১০:৩৪ অপরাহ্ণ
ইসরায়েলের স্থল অভিযান কেমন হবে, সফল হতে পারবে সেনারা?

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাসের হামলার প্রতিশোধ নিতে গাজা উপত্যকায় স্থল অভিযানের প্রস্তুতি নিচ্ছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী।

স্থল হামলার আগে— ইহুদিবাদী ইসরায়েলের সেনাবাহিনী গাজার উত্তরাঞ্চলের ১১ লাখ বাসিন্দাকে দক্ষিণ দিকে সরে যেতে বলেছে। এরমধ্যে গাজার কাছে তারা ৩ লাখ সেনা, ট্যাংকসহ অত্যাধুনিক যুদ্ধাস্ত্র জড়ো করেছে।

তবে গাজার মতো জনবহুল এলাকায় সেনা পাঠানোর বিষয়টি একটি ঝুঁকিপূর্ণ অভিযান হবে।

গাজায় ইসরায়েলের স্থল অভিযান কেমন হবে, এটির পরিধি কেমন হবে এবং কতদিন চলবে এ বিষয়টি নিশ্চিত নয়।

কখন শুরু হতে পারে স্থল হামলা?

র্বে স্থল অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া মেজর জেনারেল আমস গিলিড বলেছেন, হামলা শুরুর আগে ইসরায়েলের প্রধান কাজ ছিল— সাধারণ মানুষের সমর্থন পাওয়ার জন্য একটি জরুরি সরকার গঠন। সেটি হয়ে গেছে।

এছাড়া সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের যেসব উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ইসরায়েল সফর করেছেন তারা স্থল অভিযানের ক্ষেত্রে সবুজ সংকেত দিয়েছেন। তবে বেসামরিক মানুষ— এমনকি সেনাদের মধ্যে হতাহত কেমন হবে সে বিষয়টিও এই স্থল অভিযানের বিষয়টি ঠিক করবে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, তারা ইসরায়েলের কয়েকজন রিজার্ভ সেনার সঙ্গে কথা বলেছে। যাদের সবার মধ্যে যুদ্ধ করার আকাঙ্খা রয়েছে এবং তারা গাজায় সামরিক হামলা চালাতে মনের দিক দিয়ে উজ্জীবিত আছে।

বিবিসি নিসিম নামের এক রিজার্ভ সেনার কথা উল্লেখ করেছে। এই সেনা হামাসের হামলার সময় শ্রীলঙ্কায় ছিলেন। কিন্তু হামলার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যুদ্ধে যোগ দিতে ইসরায়েলে ফিরে এসেছেন তিনি।

বিবিসি জানিয়েছে, ইসরায়েলিদের মধ্যে এখন উদ্দীপনা এবং ঐক্য দেখা যাচ্ছে এবং তারা সবাই মনে করে গাজায় হামলা চালানো উচিত। তবে গাজায় হামলা চালানোর নির্দেশ যত দেরিতে দেওয়া হবে তাদের মধ্য থেকে সেই উদ্দীপনা কমে যেতে পারে।

ইসরায়েল যেহেতু শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) ফিলিস্তিনিদের গাজার উত্তর দিক থেকে দক্ষিণ দিতে সরে যেতে মাত্র ২৪ ঘণ্টার সময় বেধে দিয়েছে; এটির অর্থ হলো তারা যে কোনো সময় হামলা শুরু করবে।

হামলার প্রস্তুতি

হামাস হামলা চালানোর পর ইসরায়েলের প্রথম কাজ ছিল— হামাসের যেসব যোদ্ধা ইসরায়েলে প্রবেশ করেছেন তাদের হত্যা করা, আটক করা এবং ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোর উপর পুনরায় নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা।

ইসরায়েলে একটি গানের উৎসবে হামলার পর সেখানে টহল দিতে দেখা যায় ইসরায়েলি সেনাদের

স্থল হামলার প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ইতিমধ্যে গাজায় ব্যাপক বোমা হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েলি বিমানবাহিনী। তারা যুদ্ধের প্রথম ৬ দিনেই গাজায় ৬ হাজার বোমা ফেলেছে। যেখানে পুরো ২০১১ সাল জুড়ে ন্যাটো লিবিয়ায় ৭ হাজার ৭০০ বোমা ফেলেছিল। গাজায় ইসরায়েলিদের নির্বিচার বিমান হামলায় এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৮০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

গাজায় অভিযান কেমন হবে সেটি গোপন রাখবে ইসরায়েল। তবে সেখানে এ ধরনের অভিযান চালানার জন্য কয়েক বছর ধরে প্রস্তুতি নিয়েছে ইসরায়েল। গাজার মতো শহরে কীভাবে হামলা চালানো হবে সে ব্যাপারে নিজ সেনাদের বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার খরচ করে প্রস্তুত করেছে তারা।

শহুরে যুদ্ধ এবং হামাসের গোপন সুড়ঙ্গ

ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা মেজর জেনারেল ইয়াকোভ আমিদরোর স্বীকার করেছেন— হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ অনেক কঠিন হবে। কারণ সশস্ত্র এ গোষ্ঠী গাজার প্রবেশদ্বারে এবং ইসরায়েলি বাহিনীর পথে বিভিন্ন ফাঁদ পাতবে এবং বিস্ফোরক স্থাপন করবে।

ইসরায়েলের বিশ্বাস হামাসের ৩০ হাজার যোদ্ধা রয়েছে।  আর তাদের কাছে রয়েছে অটোমেটিক রাইফেল, রকেট প্রপেলড গ্রেনেড এবং ট্যাংক বিধ্বংসী অস্ত্র— যেগুলোর কিছু কিছু রাশিয়ার কর্নেটস এবং ফাগোটসের।

এছাড়া হামাসের কাছে প্রচুর রকেট রয়েছে। যেগুলো তারা যুদ্ধের শুরু থেকেই ছুড়ে আসছে।

মেজর জেনারেল ইয়াকোভ আরও জানিয়েছেন, হামাস নিজেই আত্মঘাতীসহ কিছু ছোট ড্রোন উৎপাদন করছে। এছাড়া হামাসের কাছে স্বল্প সংখ্যক স্বল্পপাল্লার সোল্ডার-লঞ্চড সারফেস টু এয়ার ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে। কিন্তু তাদের কাছে যেসব অস্ত্র নেই সেগুলো হলো— ট্যাংক, সাঁজোয়া যান এবং কামান; যেগুলো ইসরায়েলের রয়েছে।

হামাসের সেনাদের কাছে অটোমেটিক রাইফেলসহ বিভিন্ন অস্ত্র রয়েছে

ইসরায়েলের জন্য যেটি কঠিন হবে সেটি হলো জনবহুল শহরে যুদ্ধ করা।

তবে সুড়ঙ্গে যুদ্ধ করার জন্য ইসরায়েলের বিশেষ বাহিনী রয়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, খুব বেশি প্রয়োজন না পড়লে ইসরায়েল হামাসের গোপন সুড়ঙ্গে প্রবেশ করবে না। তবে হামাস এসব সুড়ঙ্গ সম্পর্কে বেশি জানে এ কারণে নয়। এর বদলে এসব সুড়ঙ্গ বিস্ফোরক ব্যবহার করে ধ্বংস করে দেওয়ার চেষ্টা করবে ইসরায়েলি বাহিনী।

ইসরায়েলের লক্ষ্য কী?

ইসরায়েলের লক্ষ্য হলো হামাসকে সামরিকভাবে দুর্বল ও নিশ্চিহ্ন করে দেওয়া।

মেজর জেনারেল গিলিড, ‍যিনি ইসরায়েলের সেনাবাহিনীতে ৩০ বছর কাজ করেছেন, তিনি বলেছেন, এবার ইসরায়েলের লক্ষ্য বড় কিছু। এর আগে ইসরায়েল গাজায় যেসব স্থল হামলা চালিয়েছিল— সেগুলোর লক্ষ্য ছিল হামাসকে আটকে রাখা। কিন্তু এবার এমন কিছু করা হবে যেন, ইসরায়েলের অন্যান্য আঞ্চলিক শত্রু ইরান ও হিজবুল্লাহ যেন এ থেকে শিক্ষা নেয়।

অপরদিকে মেজর জেনারেল ইয়াকোভ বলেছেন, এবার ইসরায়েলের লক্ষ্য হলো হামাসের সামরিক সক্ষমতা ধ্বংস করে দেওয়া। যেন তারা পুনরায় ইসরায়েলে আর কোনো হামলা চালাতে না পারে।

তবে সাম্প্রতিক ইতিহাস বলছে— স্থল অভিযান যে লক্ষ্য নিয়ে শুরু করা হয়, সেটি খুব কমই অর্জিত হয়।

যুদ্ধ বিষয়ক পর্যবেক্ষক সংস্থা ইনস্টিটিউট অব স্ট্রেটেজিক স্টাডিসের লেফটেনেন্ট জেনারেল স্যার টম বেকেট বিবিসিকে বলেছেন, মাত্র ৪০ কিলোমিটার লম্বা গাজায় সামরিক অভিযানের ফলাফল কী হবে সেটি বেশ পরিষ্কার। তার মতে, হামাসকে হয়ত নির্মূল করা হবে। কিন্তু রাজনৈতিক দল হিসেবে হামাসের যে সমর্থন সেটি থেকেই যাবে।

সূত্র: বিবিসি

বীরগঞ্জে ১০৫ টি পরিবারে ঈদ উপলক্ষে মাংস বিতরণ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২৪, ১২:৫৬ অপরাহ্ণ
বীরগঞ্জে ১০৫ টি পরিবারে ঈদ উপলক্ষে মাংস বিতরণ

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় ২নং পলাশবাড়ী ইউনিয়নে নন্দাইগাঁও মুসলিম যুব সমাজের উদ্যোগে আজ বৃহস্পতিবার (১০) এপ্রিল বিকেল ৩ টা থেকে ৪ টা পর্যন্ত দরিদ্র ও অসহায় ১০৫ টি পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

ঈদ সামগ্রী হিসেবে ছিল মাংস। ঈদ সামগ্রী বিতরণ করার সময় উপস্থিত ছিলেন নন্দাইগাঁও মুসলিম যুব সমাজের সভাপতি মাহমুদুল হাসান শাহ্,সহ-সভাপতি জাহাঈীর আলম, সাধারন সম্পাদক খাদেমুল ইসলাম,কার্যকরী সদস্য ইমাম হাসান মাহিন শাহ্, প্রমুখ।

নন্দাইগাঁও মুসলিম যুব সমাজের সভাপতি মাহমুদুল শাহ্ বলেন, ‘ধনী ও গরিবদের ঈদ আনন্দে কোনো পার্থক্য নেই। তাই আনন্দ ভাগাভাগি করতে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আমাদের এ সামান্য প্রচেষ্টা’।

আমাদের এই আয়োজনে যারা সহযোগিতা করেছেন তাদের সবার জন্য দোয়া রইলো।

উত্তরের কন্ঠ /এ,এস

গাজায় ধ্বংসপ্রাপ্ত মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় ফিলিস্তিনিদের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: বুধবার, ১০ এপ্রিল, ২০২৪, ১২:৪৪ অপরাহ্ণ
গাজায় ধ্বংসপ্রাপ্ত মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় ফিলিস্তিনিদের

দীর্ঘ একমাস সিয়াম সাধনার পর বিশ্বের বিভিন্ন দেশে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। বরাবরের মতো এবারও বিশ্বজুড়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও উৎসবমুখর পরিবেশে ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের প্রধান এই ধর্মীয় উৎসব পালিত হচ্ছে।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মতো ফিলিস্তিনের গাজা ভূখণ্ডেও পালিত হচ্ছে ঈদুল ফিতর। তবে সেখানে বাকি বিশ্বের মতো নেই ঈদের আনন্দ, আছে ধ্বংসযজ্ঞ, মানুষের মৃত্যু, আর আছে প্রিয়জন হারানোর বেদনা।

এর মধ্যেই ঈদ উদযাপন করছেন ফিলিস্তিনিরা। এমনকি গাজায় ধ্বংসপ্রাপ্ত মসজিদেই ঈদের নামাজ আদায় করেছেন তারা। বুধবার (১০ এপ্রিল) এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, ফিলিস্তিনিরা বুধবার গাজা উপত্যকার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহ শহরের আল-ফারুক মসজিদের ধ্বংসাবশেষে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেছে। মসজিদের ধ্বংসাবশেষে ফিলিস্তিনিদের ঈদের নামাজের ছবিও সামনে এসেছে।

সেখানে বুধবার সকালে রাফাহ শহরের ওই মসজিদের ধ্বংসাবশেষের পাশেই ফিলিস্তিনিদের ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করতে দেখা যায়।

এদিকে গাজার রাফাহতে ঈদের দিনও ইসরায়েলি ড্রোন সেখানকার আকাশে চক্কর দিচ্ছে। আল জাজিরা বলছে, ইসরায়েলি সামরিক ড্রোনগুলো এখনও (রাফাহ) জেলার এই অংশে চক্কর দিচ্ছে। আর এর লক্ষ্য শুধুমাত্র ফিলিস্তিনিদের এটিই মনে করিয়ে দেওয়া যে, আনন্দ ও উদযাপনের এমন দিনেও তাদের জন্য নিরাপত্তা বলে কিছু নেই।

তবুও, এই নিরাপত্তাহীনতাকে পেছনে ঠেলেই ফিলিস্তিনিরা আজ রাফাহতে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেছেন। এছাড়া নিজেদের চারপাশে ঘটে যাওয়া ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ, দুঃখ, আর্তনাদ ও শোকের মধ্যেও ফিলিস্তিনিরা একত্রিত হচ্ছেন (এবং) একে অপরকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন।

এর মধ্যে একটি হামলা চালানো হয় নুসেইরাত শরণার্থী শিবিরে। মারাত্মক এই হামলায় অন্তত ১৪ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। নিহতদের চারজনই শিশু।

যুক্তরাষ্ট্র থেকেই ইধিকার মন্তব্যের জবাব দিলেন কোর্টনি

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: বুধবার, ১০ এপ্রিল, ২০২৪, ১২:৪০ অপরাহ্ণ
যুক্তরাষ্ট্র থেকেই ইধিকার মন্তব্যের জবাব দিলেন কোর্টনি

আসন্ন ঈদে মুক্তি পাচ্ছে শাকিব খানের নতুন সিনেমা ‘রাজকুমার’। প্রথমবারের মতো মার্কিন অভিনেত্রী কোর্টনি কফির সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন ঢালিউডের বর্তমান সময়ের শীর্ষ এই নায়ক। 

সিনেমা মুক্তির আগেই শাকিব খানের নতুন সিনেমার জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন ‘প্রিয়তমা’ খ্যাত অভিনেত্রী ইধিকা পাল। যার সঙ্গেই গেল ঈদে প্রেক্ষাগৃহ মাতিয়েছেন শাকিব। গত সোমবার নিজের ফেসবুক পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে ‘রাজকুমার’ সিনেমার প্রতি শুভেচ্ছাবার্তা প্রকাশ করেন এই অভিনেত্রী।

বিষয়টি নজরে আসার পর ইধিকার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন রাজকুমার সিনেমার নায়িকা কোর্টনি কফি। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন তিনি। সেখান থেকেই ইধিকার প্রতি নিজের বার্তা প্রকাশ করেছেন এই অভিনেত্রী।

ইধিকার শুভকামনা বার্তার প্রত্যুত্তরে কোর্টনি তার ফেসবুক লিখেছেন, ইধিকা পালের মহানুভবতার জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই। ‘রাজকুমার’ ও আমাদের প্রতি শুভকামনা জানিয়ে চমৎকার পোস্টটি দেখে ভীষণ মুগ্ধ হয়েছি। ইধিকার বিষয়টি আমাকে মনে করিয়ে দিয়েছে, প্রথম দিন তার সঙ্গে দেখা হওয়ার পর আমার প্রতি উদারতা ও অনুগ্রহের কথা।
ইধিকার প্রশংসা করে অভিনেত্রী আরও লিখেছেন, আমরা জানি, ‘প্রিয়তমা’র নায়িকা হিসেবে তিনি ইতোমধ্যে বাংলাদেশে ভালোই প্রভাব বিস্তার করেছেন, যা আমি কেবল আশা করতে পারি। কারণ, অনুসারী হিসেবে তিনি একটা সুন্দর পথ তৈরি করে দিয়েছেন।

কোর্টনি লেখেন, ‘রাজকুমার’ সিনেমাটি তৈরি হতে যা যা করণীয়, সবই ‘প্রিয়তমা’ টিম আন্তরিকভাবে করেছে। আমি ইধিকা পাল এবং সব কলাকুশলীকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমি জানি, আমি তোমার ‘প্রিয়তমা’র বিকল্প হতে পরব না, তবে আমি আশা করছি, আমার আগে করা সব কাজকে ভালোভাবেই ছাপিয়ে যেতে পারব।’

‘রাজকুমার’ সিনেমার শুটিং শুরুর আগে ঢাকায় এসেছিলেন ইধিকা পাল। দেখা করে গেছেন শাকিব খান ও কোর্টনি কফির সঙ্গে। সেসময় আড্ডার পাশাপাশি ফটোসেশনেও অংশ নেন তারা।

এর আগে ইধিকার তার ফেসবুকে লেখেন, ‘আমি আপনাদের সকলের প্রিয়তমা হিসেবে ছবি মুক্তির ঠিক আগে, রাজকুমার ছবির সমস্ত টিম, প্রযোজক আরশাদ আদনান, পরিচালক হিমেল আশরাফ ভাই ও অবশ্যই বাংলাদেশের সকলের হৃদয়ের রাজকুমার শাকিব খানকে জানাই অসংখ্য অভিনন্দন ও শুভ কামনা। তর্ক বিতর্ক, ভালো এবং আরো ভালোর মাঝের ব্যবধানটুকু সরিয়ে নিলে যা মানুষকে প্রতিদিন বাঁচিয়ে রাখে, সেটা প্রত্যাশা।

প্রত্যাশা এক অমলিন অনুভূতি, সেই অনুভূতির ওপর ভিত্তি করেই এই ছবির জয়জয়কার চলুক; সকলের মনের কাছাকাছি থাক রাজকুমার। আপনাদের প্রিয়তমা হয়ে আমি এই প্রত্যাশাই রাখলাম। ভিনদেশি ইধিকাকে প্রিয়তমা করে তুলে যে ভালোবাসা আপামর বাংলাদেশ আমায় দিয়েছে তা আমার চিরকালের সম্পদ, তার পেছনে যে মানুষ গুলোর অবদান সব থেকে বেশি, সেই সুপারস্টার শাকিব খান, আরশাদ আদনান এবং হিমেল আশরাফ ভাইয়ের প্রতি আমি চিরকৃতজ্ঞ। সকলকে বলছি, হলে গিয়ে রাজকুমার দেখুন। সকলকে পবিত্র ঈদের আগাম শুভেচ্ছা, শুভ হোক।’

"> ">
বীরগঞ্জে ১০৫ টি পরিবারে ঈদ উপলক্ষে মাংস বিতরণ গাজায় ধ্বংসপ্রাপ্ত মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় ফিলিস্তিনিদের যুক্তরাষ্ট্র থেকেই ইধিকার মন্তব্যের জবাব দিলেন কোর্টনি বিছনাকন্দি ইউপির সাধারণ নির্বাচন স্থগিত যাত্রী সংকটে ধুঁকছে গাবতলী সৌদির সঙ্গে মিল রেখে ঝিনাইদহে ঈদুল ফিতরের জামাত ঈদের নামাজের জন্য প্রস্তুত জাতীয় ঈদগাহ ঈদের একদিন আগেই ফাঁকা উত্তরের মহাসড়ক আমিরাতে ঈদ উদযাপন করছেন প্রবাসীরা ‘আজ ঈদ হলে বাড়ি যাওয়া হতো না’ চাঁদপুরে অর্ধশতাধিক গ্রামে ঈদুল ফিতর উদযাপন পদ্মা সেতুতে টোল আদায়ে নতুন রেকর্ড মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে দিনাজপুরে ঈদ উদযাপন ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা, ঈদযাত্রায় নেই চিরচেনা যানজট প্রস্তুত হচ্ছে এশিয়ার সবচেয়ে বড় ঈদগাহ আজ ঈদ করবেন লক্ষ্মীপুরের সহস্রাধিক মানুষ ধ্বংস-মৃত্যু-বেদনার মধ্যেই ফিলিস্তিনে ঈদ, হামাসের শুভেচ্ছা নরসিংদীর ৩ উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে পারেন এমপি-মন্ত্রীর আত্মীয়রা নরসিংদী ঈদের কেনাকাটা করতে যাওয়ার পথে প্রাণ গেল কিশোরীর জয়পুরহাটের শ্রমিকদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ  কাহারোলে নব জীবন নারী উন্নয়ন সংস্থার ঈদ উপহার বিতরণ আজ বান্দরবান যাচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পাকিস্তানে ২০ জনকে হত্যার অভিযোগ, যা বলল ভারত শবে কদর রজনীতে দেশ ও মুসলিম জাহানের কল্যাণ কামনা প্রধানমন্ত্রীর বগুড়ায় বাস-প্রাইভেটকার সংঘর্ষে নিহত ৩ ঈদে ট্রেনে যাত্রীদের কোনো ভোগান্তি নেই: রেলমন্ত্রী ঈদে নগরবাসীর জন্য ডিএমপির ১৪ পরামর্শ আজ পবিত্র লাইলাতুল কদর প্রেমিককে বাড়িতে রাখতে স্বামীর কাছে আবদার স্ত্রীর, শেষে যা ঘটল একমাত্র ছেলের কাছে ঠাঁই হয়নি হামিদ মাস্টারের