খুঁজুন
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১২ বৈশাখ, ১৪৩১

রাজনীতির মাঠে পরাজিত হয়েছে বিএনপি

ইয়াহিয়া নয়ন
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২৩, ৯:১৯ পূর্বাহ্ণ
রাজনীতির মাঠে পরাজিত হয়েছে বিএনপি

২৮ নভেম্বর, একটা সংশয় ছিল এই দিনটি ঘিরে। বিএনপি মহাসচিব বলেছিলেন, সমাবেশ হবে শান্তিপূর্ণ। কিন্তু আমরা দেখলাম অশান্তি, আগুনে সন্ত্রাস। একজন পুলিশ সদস্য খুন হয়েছেন, অনেকে মারাত্মক আহত হয়ে হাসপাতালে আছেন। সাংবাদিক হত্যার চেষ্টা হয়েছে, অনেক সাংবাদিক জখম হয়েছেন। ইসরায়েল যেমন হাসপাতালকেও ছাড়েনি, তেমনি বিএনপি হাসপাতালে আগুন দিয়েছে, এ্যম্বুলেন্সে আগুন দিয়েছে। প্রধান বিচারপতির বাড়ি ও বিচারপতিদের কোয়ার্টারে হামলা করেছে, অডিট ভবনে আগুন দেওয়া হয়েছে, পুলিশ বক্স, পুলিশের গাড়িতেও আগুন দেওয়া হয়েছে। আর সবদোষ সরকারকে দিয়েছে, তারপর হরতালের ডাক দিয়েছে।

এক কথায়, রাজনীতির মাঠে পরাজিত হয়েছে বিএনপি। সেটা হয়েছে এই সহিংস আচরণের জন্য। বরাবরের মতো আরও একবার আন্দোলন প্রত্যাশিত ফলাফল আনতে ব্যর্থ হয়েছে বিএনপি নেতৃত্ব। অনেক উচ্চাশা তৈরি করে শেষ পর্যন্ত সহিংসতা করে, পুলিশ হত্যা করে, সাংবাদিক পিটিয়ে, গাড়িতে আগুন দিয়ে এবং হাসপাতাল পুড়িয়ে বিএনপি মূলত নিজেকে আরও কোণঠাসা করেছে। অথচ একইদিন একই সময় সহিংসতায় পারদর্শী জামায়াতে ইসলামীও সমাবেশ করেছে। কিন্তু সেই সমাবেশ শান্তিপূর্ণভাবে হয়েছে। তাদের আচরণ ছিল অহিংস। বরং বলতে গেলে সেদিন বিএনপি রাজনৈতিক সহিংসতার নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

২০১৪ সালে পেট্রোলবোমা হামলার মধ্য দিয়ে এ দেশে প্রথমবারের মতো সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মারার যে নজির দলটি সৃষ্টি করেছিল, এবার সেদিকে নতুন করে ফিরে যাওয়ার চেষ্টা করছে। সাধারণত সাংবাদিকরা সরকারি দল, সরকারি কর্তৃপক্ষসহ প্রভাবশালীদের আক্রমণের শিকার হন, এবার হয়েছেন বিরোধীপক্ষ দ্বারা। যাদের সংবাদ সংগ্রহে গিয়েছিল, তারাই পিটিয়ে আহত করেছে, চেস্টা করেছে হত্যা করতে। একটা বড় কাজ হলো পুলিশ পিটিয়ে হত্যা করা। এ কাজটি সেই সময়েও হয়েছে।

পুলিশের গাড়ি, পুলিশ বক্স সবই পুড়েছে হিংসার আগুনে। আন্দোলন-সংগ্রামে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর, সরকারি স্থাপনায় হামলা এ দেশে হয়েছে অতীতেও। কিন্তু কখনো হাসপাতালে হামলা দেখেনি এ দেশের মানুষ। চরম সহিংস পরিস্থিতিতেও অ্যাম্বুলেন্সকে ছাড় দেওয়ার সংস্কৃতি বহু পুরোনো। বিএনপি এবার অ্যাম্বুলেন্সও পুড়িয়েছে। এরশাদ জামানায় বা তারও আগে হরতালে সাংবাদিকদের গাড়ি আক্রমণের শিকার হয়েছে। কিন্তু একদম টার্গেট করে বিএনপিকর্মীরা যেভাবে সংবাদিকদের মেরেছে, সেটা অতীতে দেখা যায়নি। সাধারণত এসব ঝামেলা হয় সরকারি দলের সঙ্গে।

বিরোধী দলের কর্মসূচির তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে বিরোধী দলের হাতেই সাংবাদিক নিগ্রহের ঘটনা একেবারেই নজিরবিহীন। বিএনপিকর্মীরা প্রধান বিচারপতির বাসভবনেও হামলা করেছে, হামলা করেছে বিচারপতিদের কোয়ার্টারেও। সারা জীবন শত শত মিছিল গেছে এ মন্ত্রীপাড়া দিয়ে, কখনো একটা ঢিলও কেউ ছোড়েনি। বিএনপি এবার সেটাও করেছে। বাসভবনের গেট ভেঙে বাড়ির কম্পাউন্ডেও দলের কর্মীরা ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে। এসবই হয়েছে পরিকল্পিত ভাবে। প্রশ্ন হচ্ছে, এসব করে কার লাভ হয়েছে?

জানুয়ারীতে নির্বাচন। বিএনপি এখন চূড়ান্ত আন্দোলন করছে। কিন্তু এটি যতটা না আন্দোলন, তার চেয়ে বেশি এক হিংসাশ্রয়ী লড়াই। সঙ্গে আছে আরও ৩০টি দল। আমরা বুঝতে পারছি যে, সামনের দিনগুলোতে আরও সংঘাত ও হিংসা অনিবার্য। দলমত নির্বিশেষে সবার উচিত গণতন্ত্রের আওয়াজ তোলা। কিন্তু সহিংসতার এমন নজির স্থাপন করে কি রাজনৈতিকভাবে লাভবান হওয়া যায়? তাদের বিদেশী মোড়লরা কি এসব কাজে খুশি হচ্ছে?

২৮ অক্টোবর ঘিরে যা কিছু হয়েছে, এর ফলাফল বিএনপির বিরুদ্ধে গেছে। বিএনপিকে আরও চেপে ধরার সুযোগ পেয়েছে সরকার ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এর মধ্যেই কিছু নমুনা দেখা যাচ্ছে। রোববার বিএনপির ডাকা হরতালের দিন সকালেই গ্রেপ্তার হয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল এবং আন্তর্জাতিকবিষয়ক কমিটির সদস্য ইশরাক হোসেনের বাসায় তল্লাশি ও অভিযান চালিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ঘোষণা অনুযায়ী রাজপথ নিয়ন্ত্রণে রেখেছে আওয়ামী লীগ। ২৮ তারিখের মতো ২৯ তারিখেও তার ব্যত্যয় ঘটেনি। বিএনপি জেলা পর্যায়ে এবং ঢাকায় বড় বড় সমাবেশ করেছে। কিন্তু আন্দোলনে জনসম্পৃক্ততা বলতে যা বোঝায় সেটা দেখাতে পারেনি।

এর একটা বড় কারণ প্রান্তিক পর্যায়ে সরকারের করা অবকাঠামোগত সুবিধা পেয়ে মানুষের ভেতর একটা উন্নয়ন স্পৃহা সৃষ্টি হয়েছে। দ্বিতীয়ত ২০১৩ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত আন্দোলনের যে সহিংস রূপ মানুষ দেখেছিল, সেটা তাদের কাছে বারবার ফিরে আসে। ফলে একাত্ম না হয়ে সরে যায় তারা। এ কথা সত্যি যে, নির্বাচনী ব্যবস্থা নষ্ট হয়ে যাওয়া, জিনিসপত্রের চড়া দামের কারণে জনমনে সরকারের প্রতি ক্ষোভ আছে। কিন্তু মানুষ এটাও জানে যে, সেটার বিকল্প বিএনপি নয়। তাই সাধারণ জনগণ এ ধরনের আন্দোলনে সমর্থন প্রদানের পরিবর্তে সতর্ক অবস্থানে থাকছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগের একদফার দাবি নিয়ে বিএনপি আওয়ামী লীগকে চাপে ফেলতে চাচ্ছে। এই ২৮ অক্টোবর ছিল সে পথের সবচেয়ে আলোচিত কর্মসূচি। বিএনপিকে চাঙ্গা রেখেছিল মার্কিন ভিসা নীতি, ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের অতি সক্রিয়তা। পুলিশ হত্যাসহ সামগ্রিক সহিংসতা উল্টো বিএনপিকেই ভিসা নীতির আওতায় বড় করে নিয়ে এসেছে।

মার্কিন সমর্থন দলটিকে কতটা বিভ্রান্ত করেছে, সেটা প্রমাণ পাওয়া গেল এক ভুয়া মার্কিন নাগরিককে নিয়ে দলের নেতাদের সংবাদ সম্মেলন। দিনব্যাপী সংঘর্ষের পর যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস থেকে একটি প্রতিনিধিদল বিএনপি কার্যালয়ে যাচ্ছে বলে খবর ছড়িয়ে পড়ে। পরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের উপদেষ্টা পরিচয়ে নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন মিয়ান আরাফি নামে এক ব্যক্তি। তার পাশে দেখা যায় বিএনপি নেতা ইশরাক হোসেন এবং সাবেক জেনারেল সোহরাওয়ার্দীকে।

অনেক বছর আগে এক হরতালের সময় বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকা, পুলিশের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছিলেন বলে দাবি করেছিলেন। তার সারা শরীরে রক্তমাখা ছিল এবং রক্ত ঝরছিল। এত রক্ত দেখে অনেকেই সন্দেহ করেছিলেন, পরে জানা যায় তিনি সারা গায়ে গরুর রক্ত মেখেছিলেন। সেই সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক হোসেন এবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বাইডেনের উপদেষ্টা বলে মিয়ান আরাফি নামে একজনকে হাজির করেন দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে। সংবাদ সম্মেলনও করেন। কিন্তু মার্কিন দূতাবাস থেকে জানানো হয়, এ লোক বাইডেনের উপদেষ্টা তো নয়ই, মার্কিন প্রশাসনেরও কেউ নন, তাকে কেউ চেনে না। পুরো বিষয়টি নিয়েই হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।

দল হিসেবে বিএনপি হাসির খোরাক জুগিয়েছে। আরেকটি বিষয় প্রমাণিত হয়েছে যে, দলটির কর্মীদের মধ্যে প্রতিরোধের সাহস ও সক্ষমতা কম। পুলিশ মারমুখী হওয়ার পর অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে তারা গুটিয়ে গেছে। এমন একটি ব্যর্থ আন্দোলনের পর বিএনপিকে নতুন করে ভাবতে হবে। সরকারকে চাপে ফেলার প্রচেষ্টা ভেস্তে গেছে। দাবির মুখে বর্তমান সরকার পদত্যাগ করবে, এ ভাবনাটা ছাড়তে হবে। সব ছেড়ে বসতে হবে সংলাপে, আসতে হবে আপোষে। এর কোনো বিকল্প নেই।

 

লেখক : সাংবাদিক।

মহাস্থান আন্ডারপাস দখলমুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান

জেলা প্রতিবেদক, বগুড়া
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ৭:৫৪ অপরাহ্ণ
মহাস্থান আন্ডারপাস দখলমুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান

গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের ২৪ ঘন্টার মধ্যেই বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের মহাস্থান আন্ডারপাস অবৈধ দখলমুক্ত করতে অভিযান চালিয়েছে শিবগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে মহাস্থান আন্ডারপাসে অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাহমিনা আক্তার।

অভিযান প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাহমিনা আক্তার বলেন, মহাস্থান আন্ডারপাস ও রাস্তা দখল করে তরমুজের ব্যবসা গড়ে উঠেছিলো। এর ফলে পঁচা ও নষ্ট তরমুজের ভাগারে পরিণত হয়েছিলো এই আন্ডারপাস। পঁচা তরমুজ আন্ডারপাসের নিচে ফেলার কারণে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়েছিলো। ফলে পথচারী ও যান চলাচলে সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছিলো। দ্রুত আন্ডারপাস অবৈধ দখলমুক্ত করতে ব্যবসায়ীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) তাসনিমুজ্জামান।

উল্লেখ্য শিবগঞ্জ উপজেলার মহাস্থান আন্ডারপাস অবৈধভাবে দখল করে দীর্ঘদিন যাবৎ তরমুজ ব্যবসায়ী, মাছ ব্যবসায়ীরা ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল এবং অটোভ্যান ও সিএনজি চালকরা দখল করে ছিল।

চিরিরবন্দরে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক জনসচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

জাফর ইকবাল, চিরিরবন্দর
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ৭:৫২ অপরাহ্ণ
চিরিরবন্দরে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক জনসচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে জনসচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কতৃপক্ষ দিনাজপুর জেলা কার্যালয়ের আয়োজনে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় জনপ্রতিনিধি, খাদ্য ব্যবসায়ি, গণমাধ্যমকর্মী, এনজিও এবং সরকারি কর্মকর্তাগণের অংশগ্রহনে জনসচেতনতামূলক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম শরীফুল হক।

সহকারি কমিশনার (ভূমি) রুনাল্ট চাকমার সভাপতিত্বে এসময় উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ জোহরা সুলতানা, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ হাসেমী রাফজান, উপজেলা মৎস্য অফিসার সুমন কুন্ডু, দিনাজপুর জেলা নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা গৌতম কুমার সাহা, উপজেলা স্যানেটারী ইন্সপেক্টর মনজিল হোসেন, চিরিরবন্দর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ উল আলম প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

মতবিনিময় সভায় বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তা, সাংবাদিক, এনজিও প্রতিনিধি, খাদ্য ব্যবসায়ি, জনপ্রতিনিধি, ঈমাম, শিক্ষক, পুরোহিতসহ গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

বগুড়ায় ৮৪ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ২

জেলা প্রতিবেদক, বগুড়া
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ৭:৪৯ অপরাহ্ণ
বগুড়ায় ৮৪ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ২

বগুড়ায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৮৪ বোতল ফেন্সিডিলসহ ২ মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। গ্রেফতারকৃতরা হলো গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর থানার বক্তার পুরের মোঃ কাশেম ইসলামের ছেলে মোঃ শহিদুল ইসলাম (৩৫) এবং ঠাকুরগাঁও জেলায় রানীশংকৈল থানার কৌচল এলাকার মৃত আব্দুল বারেক এর ছেলে মোঃ মারুফ হোসেন (১৯)।

বুধবার দিবাগত রাত ১.৩০ ঘটিকার সময় বগুড়া সদর থানার মাটিডালি এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্প্রতিবার দুপুরে র‍্যাবের পাঠানো বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, রংপুর হইতে ঢাকা গামী ০১টি মোল্লা ট্রাভেলস পরিবহন বাসযোগে যাত্রীবেশে কতিপয় ব্যক্তি মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল বহন করছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দিবাগত রাত ০১.৩০ ঘটিকায় বগুড়া জেলার সদর থানাধীন মাটিডালি এলাকায় রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের উপর অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের বসা সিটের নীচে হইতে বিশেষ কায়দায় রক্ষিত ৮৪ বোতল ফেন্সিডিল, দুইটি মোবাইল, দুইটি সীম ও নগদ ২৯০০/-টাকাসহ জব্দ করা হয়।

র‍্যাব-১২ বগুড়ার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার স্কোয়াড কমান্ডার মোঃ সোহেল রানা জানান, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বগুড়া সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

"> ">
মহাস্থান আন্ডারপাস দখলমুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসনের অভিযান চিরিরবন্দরে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক জনসচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত বগুড়ায় ৮৪ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ২ বগুড়ায় বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা নওগার সাপাহারে বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা বৃষ্টির প্রার্থনায় বীরগঞ্জে ‘সালতুল ইস্তিসকার’ নামাজ আদায় বগুড়ায় বৃষ্টির প্রত্যাশায় ইসতিকার নামাজ আদায় শেরপুরে প্রচন্ড তাপদাহে কৃষকের মৃত্যু বগুড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত ব্যক্তির মৃত্যু বোচাগঞ্জে সড়ক নির্মান কাজে ধীরগতি দুর্ঘটনা আর ধুলোবালুতে অতিষ্ঠ পথচারী বীরগঞ্জে প্রাণি সম্পদ সেবা প্রদর্শণী সমাপনীতে পুরস্কার বিতরণ পীরগঞ্জে ভূমি অধিকার বিষয়ক সমাবেশ বগুড়ায় সিনেমা দেখলে বিরিয়ানি ফ্রি আমরা জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার হ্রাস করেছি : শেখ হাসিনা যে দোয়া পড়লে আপনার জন্য জান্নাত ফরিয়াদ করবে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশনে ত্রুটি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ ৩১ মে আলোচনায় বসতে পাঠানো হয়েছে চিঠি ফের এফ এ কাপের ফাইনালে ম্যানচেস্টার ডার্বি আরও তিন দিনের ‘হিট অ্যালার্ট’ জারি বীরগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ টি পদে ১৩ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল সারাদেশে ইন্টারনেটের গতি কম ঈদযাত্রায় ৪১৯ দুর্ঘটনায় নিহত ৪৩৮ দাবদাহে পুড়ছে দেশ, ঘরে-বাইরে কোথাও নেই স্বস্তি তাপদাহের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অ্যাসেম্বলি বন্ধ রাখার নির্দেশ সিসি ক্যামেরার আওতায় আসবে কক্সবাজার ছাতকের জাউয়া বাজারসহ তার আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি পীরগঞ্জে কৃষকলীগের ৫২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত সারাদেশে তিন দিনের হিট অ্যালার্ট জারি এখনই ‘প্রতিশোধে’ যাচ্ছে না ইরান নিজ বাহিনীতে ফিরে গেলেন র‌্যাবের মুখপাত্র মঈন