খুঁজুন
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১২ বৈশাখ, ১৪৩১

উপ-সম্পাদকীয়

দুইদলের একদফা বনাম মার্কিনীদের পাঁচ সুপারিশ

ইয়াহিয়া নয়ন
প্রকাশিত: রবিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২৩, ১০:৪০ অপরাহ্ণ
দুইদলের একদফা বনাম মার্কিনীদের পাঁচ সুপারিশ

১৯৯৬ সালেন ১৫ ফেব্রুয়ারি এক তরফা নির্বাচন করেছিল বিএনপি। নির্বাচন বর্জন করেছিল আওয়ামী লীগ। তবে মাঠে অসহযোগ আন্দোলন করে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বাধীন সরকারের পতন ঘটিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি আদায় করেছিল আওয়ামী লীগ এবং নির্বাচনে জয়ীও হয়েছিল। ২০১৪ সালের নির্বাচন ঠেকাতে পারেনি বিএনপি যদিও বাংলাদেশে সেই সময়টায় যে সহিংস আন্দোলন হয়েছিল এমনটা আর কোনো কালে অতীতে দেখা যায়নি।

এক তরফা নির্বাচন করে, দেড়শরও বেশি আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের নিয়ে পুরো মেয়াদ শেষ করে আবার ২০১৮ সালে নির্বাচন করে আওয়ামী লীগ। বিএনপি সেই নির্বাচনে অংশ নিয়ে ৭ টি আসন পায় মাত্র।

গত ১৫ বছর ধরে আওয়ামী সরকারের বিরুদ্ধে কোনো জোরালো আন্দলোন গড়ে তুলতে পারেনি বিরোধীদলগুলো। নির্বাচন নিকটে, সময় খুবই কম। বিএনপির এবারের কৌশল ঢাকার নিয়ন্ত্রণ নেওয়া। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, নির্বাচন কমিশন ঘেরাও করার মতো কর্মসূচির কথা ভাবছে দলটি। ভাবনায় এটিও আছে মার্কিন ভিসানীতির কারণে মাঠে বেশি কঠোর হতে পারবে না আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসন। দল হিসেবেও আওয়ামী লীগ মারমুখী হতে পারবে না। দেখা যাক শেষ পর্যন্ত বিএনপির কর্মসূচির ফলাফল কি দাঁড়ায়।

টানা ১৫ বছরের শাসকদলের বিরুদ্ধে ভোটাধিকার, মানবাধিকার, দুর্নীতি, অর্থপাচারসহ অনেক সমালোচনা আছে। কিন্তু এটা মানতেই হবে টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগ সরকার দেশে অভাবনীয় সব উন্নয়ন করেছে। বারবার ইতিহাস লেখা হচ্ছে নতুন করে। প্রথম মেয়াদেই বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে জাতিকে বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বের করে এনেছে সরকার।

দেশে এখন দুর্গম বলে আর কোনো এলাকা নেই। সড়ক, রেল, সেতুতে সংযুক্ত গোটাদেশ। নিজেদের অর্থে বানানো পদ্মা সেতু তো এখন আমাদের গৌরবের প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরই মধ্যে বাংলাদেশ প্রবেশ করেছে স্যাটেলাইট যুগে, সাবমেরিন যুগে, মেট্রোরেল যুগে, এলিভেটেডে এক্সপ্রেসওয়ে যুগে, পারমাণবিক শক্তির যুগে, প্রবেশ করতে যাচ্ছে টানেল যুগে। এা ধারাবাহিকতায় অক্টোবরকে বলা যায় উন্নয়নের মাস।

গত ৫ অক্টোবর হলো রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ইউরেনিয়াম হস্তান্তর অনুষ্ঠান। যে অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনও। তার দুদিন পরেই শেখ হাসিনা উদ্বোধন করেন শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের আধুনিক তৃতীয় টার্মিনাল। এখন পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে চলবে রেল। ২৯ অক্টোবর মেট্রোরেল চলবে মতিঝিল পর্যন্ত। এতদিন উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত চললেও মতিঝিল পর্যন্ত এটি সম্প্রসারিত হলে এর সুফল পাবে আরো অনেক বেশি মানুষ। আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে কর্ণফুলি নদীর নিচ দিয়ে চলবে গাড়ি। ঢাকা থেকে সরাসরি কক্সবাজার পর্যন্ত ট্রেন এ মাসেই চলার কথা থাকলেও বন্যার কারণে তা হয়তো কিছুটা পিছিয়ে যাবে। তবে খুব বেশি যে পেছাবে না, তা বলাই যায়। ঢাকায় এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের আংশিক চালু হয়েছে। পুরোটা চালু হলে যানজট নিরসনে তা দারুণ ভূমিকা রাখবে। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ এখন অন্য মাত্রায় উন্নীত হয়েছে।

এখন নভেম্বরকে ঘিরেই আন্দোলনের চূড়ান্ত কর্মসূচি করছে বিএনপি। বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর জায়গা থেকে দেখলে আর সময়ও নেই তাদের হাতে। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগেই নির্বাচন প্রশ্নে একটা গ্রহণযোগ্য সমাধানে পৌঁছুতে সরকারকে বাধ্য করতে সব করতে চায় তারা। সহজেই বোঝা যাচ্ছে জানুয়ারিতে নির্বাচনকে সামনে রেখে নভেম্বর ডিসেম্বর এক সংঘাতময় পরিস্থিতিতে যাচ্ছে দেশ। বিএনপি আর আওয়ামীলীগ দুইদলই এখন একদফার ওপরে আছে।

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে একটি লিটমাস টেস্ট বলে অভিহিত করেছে সদ্য বাংলাদেশ সফর করে যাওয়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রাক-নির্বাচনী পর্যবেক্ষক দল। পাঁচ দিনের সফর শেষে দেশে ফিরে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছে তারা। এতে বাংলাদেশের নির্বাচন সামনে রেখে পাঁচটি পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। পরামর্শে সংলাপ এবং মধ্যপন্থা অবলম্বনের আহ্বান জানানো হয়েছে।

পর্যবেক্ষক দলের সদস্য ও এনডিআই কো চেয়ার কার্ল এফ. ইন্ডারফুর্থ বিবৃতিতে বলেন, আমরা মনে করি, প্রাথমিক সমস্যা হলো প্রধান রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে গঠনমূলক অংশগ্রহণের অভাব। অচলাবস্থার অবসান ঘটানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ভালো বিশ্বাসের সংলাপ।
বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশের শক্তিশালী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের দৃঢ় ঐতিহ্য দেশটিকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করার ২০৪১ সালের রূপকল্প অর্জনের জন্য শক্তিশালী ভিত্তি স্থাপন করেছে। বর্তমান রাজনৈতিক পরিবেশ মানসম্পন্ন নির্বাচনের জন্য বেশ কয়েকটি চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে। যার মধ্যে রয়েছে আপসহীনতা, শূন্য-সমষ্টির (জিরো সাম) রাজনীতি, কঠোর বক্তব্য, রাজনৈতিক সহিংসতা, অনিশ্চয়তা ইত্যাদি। এছাড়া নাগরিক, রাজনৈতিক নেতা এবং অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের মধ্যে বিশ্বাসের ঘাটতি।

বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ একটি সন্ধিক্ষণে রয়েছে। আসন্ন নির্বাচন একটি গণতান্ত্রিক, অংশগ্রহণমূলক এবং প্রতিযোগিতামূলক রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার প্রতি দেশটির অঙ্গীকারের জন্য একটি লিটমাস টেস্ট। প্রতিনিধি দলটি বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে পারে এমন একটি রোডম্যাপ হিসেবে পাঁচটি পরামর্শ দিয়েছে।

প্রথম পরামর্শে সংলাপের আহ্বান করা হয়েছে। মধ্যপন্থি বক্তৃতা এবং প্রধান নির্বাচনি ইস্যুতে সংলাপের আহ্বান জানানো হয়েছে। দ্বিতীয় পরামর্শে, মত প্রকাশের স্বাধীনতা রক্ষা এবং সব নাগরিকের ভিন্ন মতকে সম্মান জানাতে বলা হয়েছে। তৃতীয় পরামর্শে, অহিংসার প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকার কথা বলা হয়েছে। পাশাপাশি রাজনৈতিক সহিংসতার অপরাধীদেরকে জবাবদিহিতার আওতায় আনার কথা বলা হয়েছে। চতুর্থ পরামর্শে, সব দলকে অর্থবহ রাজনৈতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সর্বশেষ, নাগরিকদের মধ্যে অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং সক্রিয় নির্বাচনি অংশগ্রহণের সংস্কৃতি প্রচার করার কথা বলা হয়েছে।

চলতি মাসের ৮ থেকে ১২ অক্টোবর পর্যন্ত ঢাকা সফর করে যুক্তরাষ্ট্রের ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট (আইআরআই) ও ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ইনস্টিটিউটের (এনডিআই) একটি যৌথ প্রতিনিধিদল। এসময় তারা নির্বাচন কমিশন, আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও কয়েকজন মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে। তারা দেশে ফিরে একটি যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করে।

কোনো শর্ত না দিলে বিএনপির সঙ্গে সংলাপের বিষয়টি চিন্তা করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রোববার (১৫ অক্টোবর) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় তিনি এ কথা জানান। মার্কিন প্রাক-নির্বাচন পর্যবেক্ষণ দলের সুপারিশে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে অর্থবহ সংলাপসহ পাঁচটি সুপারিশের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সংলাপের চিন্তা করবো তখন যখন তারা (বিএনপি) চারটি শর্ত প্রত্যাহার করে নেবে। শর্তযুক্ত সংলাপের ব্যাপারে আমাদের কোনো চিন্তা-ভাবনা নেই। শর্ত তারা প্রত্যাহার করলে দেখা যাবে।’ তিনি বলেন, ‘অন্য বিষয় (মার্কিন প্রাক-নির্বাচনী পর্যবেক্ষক দলের) নিয়ে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। ওগুলো নিয়ে আমরা সবাই একমত।’

শর্তমুক্তভাবে বিএনপি সংলাপ করতে চাইলে আওয়ামী লীগ সংলাপে বসবে কি না, এ প্রশ্নে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তখন চিন্তা করে দেখবো।’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তারা (মার্কিন প্রাক-নির্বাচনী পর্যবেক্ষক দল) তো আমাদের সঙ্গে কথা বলে গেলো। বিশদ আলোচনা হয়েছে, নির্বাচন সম্পর্কিত যেসব বিষয় আছে সেগুলো বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। নির্বাচন ফ্রি, ফেয়ার করা- সে অবস্থানে আমরা আছি এবং আমরা সেটি বলেছি।’

পর্যবেক্ষক দলের সঙ্গে সংলাপ নিয়ে কোনো সুনির্দিষ্ট আলোচনা হয়নি দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সংলাপ নিয়ে স্পেসিফিক কোনো আলোচনা তারা করেনি। এখন যদি তারা মনে করেন এটা তাদের ব্যাপার, তারা বলতে পারেন। সংলাপ তো একপক্ষ করবে না। বিএনপি বলছে তারা প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ চায়, সংসদ ভেঙে দেওয়া, তত্ত্বাবধায়ক সরকার চায়, নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ চায়। আমরা তো এই শর্তযুক্ত সংলাপে রাজি হবো না।’ সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করলে তারা কার সঙ্গে আলোচনা করবেন? রাষ্ট্রপতি আলোচনা করতে চেয়েছেন- তারা (বিএনপি) রিজেক্ট করেছেন। নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে দুবার আলোচনার প্রস্তাব তারা খারিজ করে দিয়েছে।’

এখন বিএনপি তাদের নেতা লন্ডন থেকে কি বার্তা পাঠাবে সেই অপেক্ষায় আছে। ঢাকার রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন,বিএনপি সংলাপে বসবে এবং নির্বাচনেও আসবে। তাদের ভেতরে ভেতরে সেই প্রস্তুতি চলছে। শর্ত যা থাকবে তা একান্ত গোপনে। তবে সবটুকু দেখার জন্য নভেম্বর মাসটা গুরুত্বপূর্ণ সময়।

লেখক : সাংবাদিক।

বগুড়ায় বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

জেলা প্রতিবেদক, বগুড়া
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১:১০ অপরাহ্ণ
বগুড়ায় বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন। তীব্র গরমে বৃষ্টি প্রত্যাশা করে ইসতিসকার নামাজ আদায় করেছেন বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার সৈয়দপুর ইউনিয়নের ভবানীপুর এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

বৃহঃবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় দিকে ভবানীপুর মসজিদ প্রাঙ্গনে খোলা আকাশের নিচে এ নামাজের আয়োজন করেন স্থানীয় মুসল্লিরা।

এতে বিভিন্ন এলাকায় প্রায় শতাধিক মুসল্লি অংশ নেন। নামাজের ইমামতি করেন সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা শাহাদুজ্জামান। নামাজ শেষে বৃষ্টির আশায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এসময় মুসল্লিরা উল্টো হাতে কেঁদে কেঁদে বৃষ্টি প্রত্যাশায় দোয়া করেন।

স্থানীয়রা জানান, বৃষ্টির অভাবে জনজীবন অতিষ্ঠ, খাল-বিল, নদী-নালা শুকিয়ে চৌচির হয়ে গেছে। পানির অভাবে চাষাবাদও মারাত্মক ভাবে ব্যাহত হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে মাঠের ফসল। এ কারণেই আল্লাহ তায়ালার দরবারে বৃষ্টি চেয়ে এলাকাবাসী খোলা মাঠে নামাজ আদায় ও দোয়ার আয়োজন করেন।

এছাড়াও উপজেলার শব্দলদিঘী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ও সদর উপজেলার গোদারপাড়ায় সকাল সাড়ে ৮ ঘটিকার সময় ইসতিকার সালাত আদায় করে স্থানীয়রা।

নওগার সাপাহারে বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাপাহার
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১:০৫ অপরাহ্ণ
নওগার সাপাহারে বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা

তীব্র তাপদাহে অতিষ্ঠ জনজীবন। তীব্র গরমে বৃষ্টি প্রত্যাশা করে ইসতিসকার নামাজ আদায় করেছেন সাপাহার উপজেলার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

বৃহঃবার সকাল ৯ ঘটিকার সময় সাপাহার শরফাতুল্লাহ ফাজিল মাদ্রাসার আয়োজনে মাদ্রাসা মাঠ প্রাঙ্গনে খোলা আকাশের নিচে এ নামাজ আদায় করেন স্থানীয় মুসল্লিরা।

এতে বিভিন্ন এলাকায় প্রায় শতাধিক মুসল্লি অংশ গ্রহণ করেন। ইমাম নামাজের মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে নামাজের নিয়ম-কানুন বলেন এরপর দুই রাকাত নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষে দুই হাত তুলে প্রচন্ড গরম তীব্র তাবপ্রদাহ ও খরা থেকে রক্ষা পেতে বৃষ্টি প্রার্থনা করেন মহান আল্লাহর দরবারে বিশেষ দোয়া প্রার্থনা করেন সকলের চোখে জল ঝরে মোনাজাত ও ক্ষমাপ্রার্থনা করেন ইমাম ও মোসল্লীরা নামাজ শেষে বৃষ্টির আশায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এসময় মুসল্লিরা উল্টো হাতে কেঁদে কেঁদে বৃষ্টি প্রত্যাশায় দোয়া করেন।

নামাজে ইমামতি ও দোয়া পরিচালনা করেন সাপাহার সরফাতুল্লাহ ফাজিল মাদ্রাসার প্রভাষক ও হেফজুল বিভাগের প্রধান এবং সাপাহার মডেল মসজিদের সাবেক ইমাম মাওলানা ওমর ফারুক।

বৃষ্টির প্রার্থনায় বীরগঞ্জে ‘সালতুল ইস্তিসকার’ নামাজ আদায়

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২৪, ১২:৩৭ অপরাহ্ণ
বৃষ্টির প্রার্থনায় বীরগঞ্জে ‘সালতুল ইস্তিসকার’ নামাজ আদায়

সূর্যের আলোর প্রখরতা, তীব্র দাবদাহে মানুষ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। হয়েছে আবহাওয়ার পালাবদল। তীব্র গরম থেকে মুক্তি পেতে দিনাজপুরের বীরগঞ্জের ভোগনগর ইউনিয়নের রহিম বখস্ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বৃষ্টির আশায় সালাতুল ইস্তেসকার নামাজ ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল ২০২৪) সকাল সাড়ে দশটার সময় ইস্তেসকার নামাজ অনুষ্টিত হয়। বীরগঞ্জ ফাজিল মাদ্রাসার সাবেক অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মোঃ মিরাজ রহমান নামাজে ইমামতি করেন। এতে শতাধীক মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। গত এক মাস আগেও বীরগঞ্জের যেখানে তাপমাত্রা ছিলো ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের নিচে। মাস খানেক পরেই সেখানে বেড়ে দাড়িয়েছে ৪৩ এর কোঁঠায়।

তীব্র রোদ আর ভ্যাবসা গরমে অস্থির জন-জীবন। বৃষ্টি না হওয়া স্বস্তির নিশ্বাস নিতে পারছেন না সাধারণ মানুষ। এই গরমে দেখা দিয়েছে খড়তা। বৃষ্টি না হওয়ায় নষ্ট হচ্ছে জমির ফসল। অপর দিকে নষ্ট হচ্ছে গাছের ফল। কিছু অঞ্চলে পানির স্তর নেমে যাওয়ায় টিউবওয়েল থেকে ঠিকমত উঠছে না পানি।

ভোগনগর ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান রাজিউর রহমান রাজু বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশে অনাবৃষ্টি ও তীব্র দাবদাহের কারনে জন-জীবন কষ্টকর হয়ে দাড়িয়েছে। পশু-পাখী, গাছ-পালা সহ সকলের জন্য অত্যন্ত পানি প্রয়োজন হওয়া আমরা এলাকার যুবকরা মিলে সালাতুর ইস্তেসকার নামাজের আয়োজন করি।’

হাসিনুর ইসলাম বলেন, ‘আমরা এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে খোলা ময়দানে ইস্তেসকার নামাজ আদায় করেছি। অনাবৃষ্টির ফলে তীব্র গরমের কারণে শিশু, বৃদ্ধ, পশুপাখি সকলে কষ্টে জীবনযাপন করছে। রোজাদারদের অনেক কষ্ট হচ্ছে। গরমের কারণে বাচ্চারা পড়ালেখায় মন বসাতে পারছে না। বৃদ্ধরা অসুস্থ হয়ে পড়ছেন।’

হাফেজ মো: জাহেদুল ইসলাম বলেন, ‘রাসূল (সাঃ) অনাবৃষ্টি ও দূর্ভিক্ষের জন্য সাহাবীদের নিয়ে খোলা ময়দানে ইস্তেসকার সালাত আদায় করেছিলেন। নবী রাসূলের সুন্নাত কে আকড়ে ধরার জন্য বর্তমান বাংলাদেশে অনাবৃষ্টি দেখা দিয়েছে। আমরা খোলা মাঠে সালাতুল ইস্তেসকা নামাজ আদায় করেছি।’

সালাতুল ইস্তেসকার নামাজ ও বিশেষ মোনাজাতে উপস্থিত ছিলেন ভোগনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ এলাকার সকল মুসল্লিগণ।

নামাজ শেষে বৃষ্টির আশায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এ সময় মুসল্লিরা কাঁদতে কাঁদতে আল্লাহর দরবারে দুই হাত তুলে বীরগঞ্জ উপজেলাসহ পুরো বাংলাদেশে বৃষ্টি বর্ষণের জন্য দোয়া করেন।

"> ">
বগুড়ায় বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা নওগার সাপাহারে বৃষ্টি চেয়ে কাঁদলেন মুসল্লিরা বৃষ্টির প্রার্থনায় বীরগঞ্জে ‘সালতুল ইস্তিসকার’ নামাজ আদায় বগুড়ায় বৃষ্টির প্রত্যাশায় ইসতিকার নামাজ আদায় শেরপুরে প্রচন্ড তাপদাহে কৃষকের মৃত্যু বগুড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত ব্যক্তির মৃত্যু বোচাগঞ্জে সড়ক নির্মান কাজে ধীরগতি দুর্ঘটনা আর ধুলোবালুতে অতিষ্ঠ পথচারী বীরগঞ্জে প্রাণি সম্পদ সেবা প্রদর্শণী সমাপনীতে পুরস্কার বিতরণ পীরগঞ্জে ভূমি অধিকার বিষয়ক সমাবেশ বগুড়ায় সিনেমা দেখলে বিরিয়ানি ফ্রি আমরা জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার হ্রাস করেছি : শেখ হাসিনা যে দোয়া পড়লে আপনার জন্য জান্নাত ফরিয়াদ করবে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশনে ত্রুটি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ ৩১ মে আলোচনায় বসতে পাঠানো হয়েছে চিঠি ফের এফ এ কাপের ফাইনালে ম্যানচেস্টার ডার্বি আরও তিন দিনের ‘হিট অ্যালার্ট’ জারি বীরগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩ টি পদে ১৩ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল সারাদেশে ইন্টারনেটের গতি কম ঈদযাত্রায় ৪১৯ দুর্ঘটনায় নিহত ৪৩৮ দাবদাহে পুড়ছে দেশ, ঘরে-বাইরে কোথাও নেই স্বস্তি তাপদাহের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অ্যাসেম্বলি বন্ধ রাখার নির্দেশ সিসি ক্যামেরার আওতায় আসবে কক্সবাজার ছাতকের জাউয়া বাজারসহ তার আশপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি পীরগঞ্জে কৃষকলীগের ৫২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত সারাদেশে তিন দিনের হিট অ্যালার্ট জারি এখনই ‘প্রতিশোধে’ যাচ্ছে না ইরান নিজ বাহিনীতে ফিরে গেলেন র‌্যাবের মুখপাত্র মঈন শিশু হাসপাতালের আগুন নিয়ন্ত্রণে থার্ড টার্মিনালের দেয়াল ভেঙে ভেতরে বাস, প্রাণ গেল প্রকৌশলীর বীরগঞ্জে আশ্রয়ণ প্রকল্পের জরাজীর্ণ ব্যারাকের  ঘরের নির্মাণ কাজে জেলা প্রশাসক পরিদর্শন